Events & Opinion
রানা প্লাজায় নিহত (৫৪০) জীবিত উদ্ধার (২,৪৩৮) এখনো চাপা পড়ে আছে (????) PDF Print E-mail
Written by শফিক রেহমান   
Saturday, 04 May 2013 08:59

বর্তমান আওয়ামী সরকারের আমলে যে বারোটি বিশাল মানবিক বিপর্যয়ে বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছে এবং বিরাট আর্থিক বিপর্যয়ে বহু মানুষ তাদের সঞ্চয় হারিয়েছে সেসব ঘটনার পেছনে কোন আওয়ামী মন্ত্রী-নেতারা সম্পৃক্ত ছিলেন তার কিছু বিবরণ জানা গেছে। তারা নেপথ্যেই থাকতে চেয়েছেন। সামনে ঠেলে দিয়েছেন তাদের ফ্রন্টম্যানদের। এই ফ্রন্টম্যানদের বহন করতে হয়েছে সমাজের ধিক্কার, মিডিয়ার সমালোচনা এবং পুলিশের রিমান্ড ও জেল। যেমন ডেসটিনির আর্থিক কেলেংকারিতে ওই গ্রুপের প্রেসিডেন্ট, সেক্টর কমান্ডার ও সাবেক সেনা প্রধান লে. জে. হারুন-অর-রশিদ জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। কিন্তু জেলে গিয়েছেন ওই গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মোহাম্মদ রফিকুল আমীন। যেমন, হলমার্কের আর্থিক কেলেংকারিতে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ উঠলেও প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ড. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী নিরাপদে আছেন। কিন্তু জেলে গিয়েছেন এই গ্রুপের কর্ণধার তানভির মাহমুদ তফসির। যেমন, সর্বশেষ মানবিক বিপর্যয়ে সাভারের আওয়ামী এমপি মুরাদ জংয়ের বিরুদ্ধে রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানাকে সার্বিক প্রশ্রয় দেয়ার অভিযোগ উঠলেও তিনিও নিরাপদে আছেন। কিন্তু সোহেল রানা হাজতে আছেন।এই ফ্রন্টম্যানদের হয়তো কিছু শাস্তি ভোগ করতে হবে। তবে আওয়ামী লীগ যদি আবার সাধারণ নির্বাচন ম্যানেজ করে ক্ষমতায় থেকে যেতে পারে তাহলে তারা লঘু দণ্ড ভোগ করবেন।

Read more...
 
কবে কিভাবে আওয়ামী সরকার বিদায় নেবে? PDF Print E-mail
Written by শফিক রেহমান   
Sunday, 28 April 2013 17:21

২৯ ডিসেম্বর ২০০৮-এর সন্দেহজনক নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ বিজয়ী হয়ে ৬ জানুয়ারি ২০০৯-এ সরকার গঠন করে। এর মাত্র ৪১ দিন পর থেকে আওয়ামী সরকার স্বরূপে আবির্ভূত হতে থাকে। শান্তিপূর্ণ সহঅবস্থানের ভিত্তিতে দেশকে সামনের দিকে নিয়ে যাবার বদলে আওয়ামী সরকার মনোনিবেশ করে, যথাক্রমে, ইনডিয়ার কাছে ব্যক্তি ও দলের ঋণ পরিশোধে, ষড়যন্ত্রে, মামলা দায়ের এবং প্রতিপক্ষকে জেলে পাঠানোতে, দলীয় উদ্দেশ্য সাধনে বিচারবিভাগ বশীকরণে এবং দলকে ক্ষমতায় চিরস্থায়ী করার লক্ষ্যে সংবিধান সংশোধনে। এর সঙ্গে যুক্ত হয় আওয়ামী লীগের অন্তর্নিহিত চক্রান্তপ্রিয়তা ও অযোগ্যতা, যা এর আগের দুটি আওয়ামী সরকারের সময়েও দেখা গিয়েছিল, যেমন পুলিশ বাহিনীসহ প্রশাসনকে দলীয়করণ, অর্থনৈতিক ম্যানেজমেন্টে অদক্ষতা, শীর্ষ পর্যায় থেকে স্থানীয় পর্যায় পর্যন্ত ব্যাপক দুর্নীতি, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিভিন্ন দিবস পালনে আসক্তি ও ব্যক্তি পূজায় মত্ত হয়ে নাম বদলের নেশা প্রভৃতি। তাই এটা কোনো আশ্চর্য নয় যে আওয়ামী সরকারের গত চার বছর চার মাস শাসনে যে পনেরটি বড় বিপর্যয় বাংলাদেশে ঘটেছে, তার মধ্যে বারোটির সঙ্গেই আওয়ামী সরকার ও দলের নিবিড় সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ উঠেছে। এই বারোটি হলো :

Read more...
 
Muslim Masses Slap Awami League and Sheikh Hasina PDF Print E-mail
Written by Kader Khan   
Thursday, 11 April 2013 17:51

The Massive Gathering

The massive gatherings of hundreds of thousands in Dhaka and across Bangladesh on 6th April organized by Hefajat-e-Islam sent a powerful shivering message to the Anti-Islamic Awami League Sheikh Hasina and her cronies.  Awami League has no place in Muslim Bangladesh and their days are numbered. Despite the Awamis trying to appease and pacify Hefajat to forgo their “Long March”, the program went as scheduled.

Read more...
 
RAB Judges Desperate to Save the BAL Regime in Bangladesh PDF Print E-mail
Written by F M Aziz   
Tuesday, 19 March 2013 19:56

Last week a British MP and former Energy Secretary Chris Huhne was given an eight months prison sentence in connection with a minor traffic offence. In 2010 his car was caught by a speed camera and he asked his wife to lie that she was at the driving wheel so that the penalty points will be recorded against her license instead of his. Later, Mrs Huhne became enraged when he divorced her and she decided to ruin his political career by revealing to the press that the speeding offence was in fact committed by Mr Huhne and not her. But when the issue went to court the jury found both of them guilty and the judge sent both to jail for perverting the course of justice and for trying to cheat the court. A judge told Mr Huhne, ‘you tried to lie your way out of trouble and repeated that lie again and again’. Some of the comments that Mr Huhne made in interviews with the press hours before going to jail are: ‘I should not have lied on an official form’; Lawmakers can be many thing, but they cannot be lawbreakers; ‘...just because the legal system turns a blind eye to one case does not mean that it can, or should, in my case.’

Read more...
 
১৯৪৭ সালে অখন্ড বাংলা স্বাধীন না হয়ে কেন পূর্ব পাকিস্তান হল? PDF Print E-mail
Written by ব্যা রি স্টা র সা লা হ উ দদী ন আ হ ম দ   
Tuesday, 19 March 2013 19:10

ভারত বিভাগের অব্যবহিত পূর্বে ১৯৪৬ সালের নির্বাচনে মুসলিম লীগের পক্ষে সোহরাওয়ার্দী জয়লাভ না করলে জিন্নাহ পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা হতে পারতেন না। কিন্তু জিন্নাহ যখন পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা হন, ঠিক ওই একই সময়ে সোহরাওয়ার্দীও এক স্বাধীন যুক্ত বাংলার প্রতিষ্ঠাতা হওয়ার প্রায় শেষ পর্যায়ে পৌঁছেছিলেন। জিন্নাহ যুক্ত বাংলা পরিকল্পনা বাংলার মুসলমানদের জন্য মঙ্গলকর হবে মনে করে এর সমর্থন করেন। ১৯৪৭ সালের ২৬ এপ্রিল জিন্নাহর সাথে এক আলাপ-আলোচনায় লর্ড মাউন্টবেটেন তাকে জানান, সোহরাওয়ার্দী ‘মনে করেন যে তার পক্ষে যুক্ত বাংলাকে ধরে রাখতে সম্ভব হবে, যদি এটি পাকিস্তান অথবা হিন্দুস্তান কোনোটাতেই যোগদান না করে।’ ‘টপ সিক্রেট’ এই আলাপ-আলোচনা এভাবে লিপিবদ্ধ হয়ঃ ‘আমি মি. জিন্নাহকে সোজাসুজি জিজ্ঞেস করলাম পাকিস্তানের বহিভূêত থেকে যুক্ত বাংলার অবস্থান সম্পর্কে তার কী অভিমত?’ কোনো দ্বিধা না করে তিনি বললেনঃ ‘আমি আনন্দিত হব। কলকাতা ব্যতীত বাংলার কী মর্যাদা রয়েছে? তাদের (বাঙালিদের) পক্ষে যুক্ত থাকা এবং স্বাধীন থাকাই ভালো হবে। আমি এ ব্যাপারে নিঃসন্দেহ যে এরা আমাদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রাখবে।’ আমি তখন বললাম, সোহরাওয়ার্দী বলেছেন­ যদি বাংলা যুক্ত এবং স্বাধীন থাকে তাহলে বাংলা কমনওয়েলথের অন্তর্ভুক্ত থাকার ইচ্ছা প্রকাশ করবে। জিন্নাহ উত্তরে বলেনঃ ‘সেটাই তো ঠিক, যেমন আমি আপনার কাছে প্রকাশ করেছি, পাকিস্তান কমনওয়েলথের অন্তর্ভুক্ত থাকার ইচ্ছা প্রকাশ করবে।’ (মাউন্টবেটেন পেপারস, লর্ড মাউন্টবেটেন ও জিন্নাহর মধ্যে ১৯৪৭ সালের ২৬ এপ্রিলে অনুষ্ঠিত ইন্টারভিউয়ের রেকর্ড, Nicholas Mansergh, The Transfer of Power, 1942-47, vol. X, পৃঃ ৪৫২-৪৫৩ দ্রঃ) 

Read more...
 
<< Start < Prev 1 2 3 4 5 6 7 8 Next > End >>

Page 3 of 8
Dr Firoz Mahboob Kamal, Powered by Joomla!; Joomla templates by SG web hosting
Copyright © 2018 Dr Firoz Mahboob Kamal. All Rights Reserved.
Joomla! is Free Software released under the GNU/GPL License.